ভোজন করলেন শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়
দেলোথাং ওঁরাও ও মুনু ওঁরাও এর বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজন করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়।

ভোটের আগে বিজেপির সার্জিক্যাল স্টাইক ধুপগুড়ির তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক বিজেপিতে
 ভোজন করলেন শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়
দেলোথাং ওঁরাও ও মুনু ওঁরাও এর বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজন করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়।

অভীক পুরকাইত– ভোটের ঠিক দুদিন আগে ধুপগুড়ির প্রাক্তন বিধায়ক মিতালি রায় যোগদান করলেন বিজেপিতে। সুকান্ত মজুমদারের হাত থেকে দলীয় পতাকা নিয়ে তিনি বিজেপিতে যোগদান করলেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধুপগুড়ি জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।ধুপগুড়ি উপ নির্বাচনে তৃণমূলের কংগ্রেসের টিকিট না পেয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন প্রাক্তন বিধায়ক মিতালি রায়।নির্মল চন্দ্র রায়ের বিপক্ষে গিয়ে তিনি নির্দলেও দাঁড়াতে গিয়েছিলেন। শেষমেষ বিজেপিতে যোগদান করায় ধুপগুড়ির উপ নির্বাচনে রাজনীতির পারদ যেন আরেকটু বৃদ্ধি পেল। উত্তরবঙ্গের মধ্যে মিতালি রায় তৃণমূল কংগ্রেসের বেশ জনপ্রিয় নেত্রী ছিলেন। এবং সাংগঠনিক দিক থেকে যথেষ্ট শক্তিশালী ছিলেন। ধুপগুড়ি অলিতে গলিতে বহু মানুষ মিতালি রায়ের প্রতি আস্থাশীল। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল মহকুমা ঘোষণা করেছে। সেই মঞ্চে মিতালী রায়কে দেখা গিয়েছে। ১২ ঘন্টায় মিতালী রায়ের এই ভোল বদলে রীতিমতো ক্ষুব্ধ তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা।সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন মিতালীর বিরূদ্ধে। অন্যদিকে মিতালী বিজেপিতে যোগদানের পর বিজেপির অন্দরে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। নিচু তলার নেতৃত্ব বিষয়টি মেনে নিতে পারছে না। মিতালীর জয়েন করার পর কিছু সংখ্যক কর্মী বিক্ষোভ দেখান। দলের এই একাংশের বিক্ষোভ তৃণমূল কংগ্রেস আবার হাতিয়ার করেছে।তৃণমূল কংগ্রেস মনে করেছিল এবার ভোটে জিততে কোন বাধা রইল না। কিন্তু মিতালি রায় বিজেপিতে যোগদান করায় বহু সংখ্যক ভোট কাটার সম্ভাবনা তৃণমূলের।এই প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, মিতালী রায়কে পেয়ে আমরা খুশি। গোটা উত্তরবঙ্গে তাকে কাজে লাগাবো। আমাদের এই পরিবারে মিতালী রায়কে স্বাগত জানাচ্ছি। বিজেপিতে যোগদানের পরে মিতালী রায় বলেন, ২০২১ এর পর থেকে আমি প্রচারের আলোর বাইরে। এবারের নির্বাচনী কোন প্রচারে আমি যেতে চাইনি। কিন্তু আমাকে প্রেশার ক্রিয়েট করা হচ্ছিল প্রচারে যাওয়ার জন্য। তাই আমি মন স্থির করেছি বিজেপিতে যোগদান করব। এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের জলপাইগুড়ি জেলার সাধারণ সম্পাদক রাজেশ কুমার সিং বলেন, বিজেপির এটা মাস্টার স্টক না সার্জিক্যাল স্টাইক কিছু দিনের মধ্যে বুঝবে। যে আগের দিন অভিষেকের সভায় দাঁড়িয়ে জেতার আহ্বান করে সেই বিজেপিতে যোগ দিল। যে মানুষ কারো হতে পারে না ব্যক্তিত্ব রাখতে পারেনা সে করো না।
অন্যদিকে ধুপগুড়ি বিধানসভা উপনির্বাচনে বানারহাটে প্রচারের মাঝে মোগলকাটা চা বাগানে দেলোথাং ওঁরাও ও মুনু ওঁরাও এর বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজন করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মহাশয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × two =