মাংস-ভাত খাওয়ানোর নাম করে বাড়ি থেকে ডেকে জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ। কাঠগড়ায় প্রতিবেশী যুবক। তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নাবালিকার অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক।
নাবালিকা ও নাবালিকার মাকে
গোপন জবানবন্দি দেওয়ার জন্য বারুইপুর আদালতে নিয়ে যাওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। ছবি- অভীক পুরকাইত

সোনারপুর – মাংস ভাত খাওয়ানোর নাম করে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এসে দশ বছরের এক নাবালিকাকে নৃশংস ভাবে ধর্ষণ করার অভিযোগ। ঘটনায় গ্রেফতার শংকর হালদার (৩৫) নামে এক অভিযুক্ত। পুলিশ সূত্রে জানা যায় গতকাল রাতে নরেন্দ্রপুর থানা এলাকার গড়িয়ার বাসিন্দা শংকর হালদার ১০ বছরের এক নাবালিকাকে তার বাড়ির কাছ থেকে মাংস ভাত খাওয়ানোর নাম করে ওই নাবালিকাকে ডেকে নিয়ে চলে যায় একটি জঙ্গলের মধ্যে। এরপর ঘন্টাখানেক ধরে চলে তার সাথে নৃশংস অত্যাচার। যাতে চিৎকার করতে না পারে’ তার জন্য মুখ বেঁধে এই নৃশংস অত্যাচার চালানো হয় নাবালিকার সাথে। নাবালিকার প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ার পর প্রমাণ লোপাটের চেষ্টাও করে অভিযুক্ত। এরপর স্থানীয় মানুষের চোখে পড়ে যাওয়ায় সেখানে ছুটে গিয়ে অভিযুক্তকে ধরে ফেলেন তারা। তাকে আটকে রাখে পুলিশের খবর দেওয়া হয়। এরপর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নাবালিকার মার অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তার বিরুদ্ধে পক্স আইনে মামলা রুজু করে আজ অভিযুক্ত শংকর হালদার কে বারুইপুর আদালতে পেশ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × three =