যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ধুন্ধুমার কান্ড! ভয়ংকর সংঘর্ষ ২ ছাত্র সংগঠনের মধ্যে, মারাত্মক আহত এসএফআই এর ছাত্রনেতা
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ধুন্ধুমার কান্ড! ভয়ংকর সংঘর্ষ ২ ছাত্র সংগঠনের মধ্যে

অভীক পুরকাইত, কলকাতা : ধুন্ধুমার পরিস্থিতি এবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে । এদিন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মধ্যে সংঘর্ষে জড়ায় এসএফআই এবং ডাব্লুটিআই। যাদবপুরের পড়ুয়া মৃত্যুর ঘটনাকে ঘিরে জিবি বৈঠক ডাকা হয়েছিল। অভিযোগ, সেই বৈঠকেই এসএফআই এবং ডব্লুটিআই সমর্থকদের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। সেই সময়ে দু পক্ষের বেশ কয়েকজন হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন। জানা গিয়েছে, হাতাহাতিতে এসএফআই-র এক কর্মী আহত হন।গুরুতর আহত অবস্থায় শুভম নামে এসএফআই সমর্থককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, যাদবপুর কাণ্ডে ধৃত সৌরভ চৌধুরী ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল বলে অভিযোগ। অন্যদিকে, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেল ছাড়া নির্দেশ প্রাক্তনী ও বহিরাগতদের দেওয়া হলেও, একাধিক প্রাক্তন বহিরাগতরা এখনও হোস্টেল ছাড়েনি। এমনই তথ্য উঠে এল অ্যান্টি কমিটির বৈঠকে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে হোস্টেলগুলিকে চিঠি দিয়ে ফের প্রাক্তন এবং বহিরগতদের হোস্টেল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। কার্যত সতর্কবার্তা হিসেবেই এই নির্দেশ দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় হোস্টেল গুলিকে। এরপরও হোস্টেল না ছাড়লে পদক্ষেপ নেবে কর্তৃপক্ষ। অ্যান্টি ব়্যাগিং কমিটির বৈঠকের পর হোস্টেল গুলিকে চিঠি দিয়ে এমনটাই জানাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যাদবপুরের মেন হোস্টেলের ছাত্রের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনার জেরে বিশ্ববিদ্যালয় বাড়ানো হচ্ছে নিরাপত্তা রক্ষীর সংখ্যা। নিরাপত্তা রক্ষীর সংখ্যা বাড়াতে চেয়ে রাজ্যকে চিঠি লিখতে চলেছে যাদবপুর কর্তৃপক্ষ। বিশেষ প্রশিক্ষিত নিরাপত্তা রক্ষী চায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। প্রয়োজনের তুলনায় বিশ্ববিদ্যালয় নিরাপত্তা রক্ষীর সংখ্যা কম।বিশ্ববিদ্যালয় অ্যান্টি রাগিং কমিটির বৈঠকে এমনই প্রসঙ্গে উঠল। তড়িঘড়ি বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেল গুলিতে নিরাপত্তার রক্ষীর সংখ্যা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রতিনিয়ত যাতে নজরদারি করা যায় তার জন্য বিশেষ নিরাপত্তা রক্ষী চাইছে যাদবপুর। এখন প্রশ্ন থেকেই যায় এতো কিছুর পরেও কি এই নোংরামী ব়্যাগিং চিরতরে বন্ধ করতে পারবে এই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 + twelve =