ধূপগুড়ি মহকুমা নাগরিক মঞ্চের অবস্থান কর্মসূচিতে সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী
ধূপগুড়ি মহকুমা নাগরিক মঞ্চের অবস্থান কর্মসূচিতে সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী

অভীক পুরকাইত:- অবিলম্বে ধুপগুড়িকে মহকুমা ঘোষণা করতে হবে এই দাবিতে শনিবার অবস্থান কর্মসূচি পালন করলো ধুপগুড়ি মহাকুমা নাগরিক মঞ্চের সদস্যরা।ধুপগুড়ির বিয়ার কমপ্লেক্সের সামনে অবস্থানে বসেন মহকুমা নাগরিক মঞ্চের সদস্যরা। সমাজের বিশিষ্টজনরা মহকুমা আন্দোলনের এই কর্মসূচিতে শামিল হয়। ধুপগুড়িকে মহকুমা করার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে যাচ্ছে ধুপগুড়ি মহাকুমা নাগরিক মঞ্চ। ভোটের আগে ফের এই আন্দোলন মাথা চারা দিয়েছে। মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে শুরু করে অবস্থান, রেলি, লিফলেট বিলি, পোস্টার কোন কিছুই বাদ রাখছে না মঞ্চের সদস্যরা। ধুপগুড়ি বাসি স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাড়া না দিলেও আন্দোলনে কোন খামতি রাখছে না মঞ্চের সদস্যরা। ভোটের আগে একের পর এক কর্মসূচি রেখেছে তারা। তবে অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, ভোট ঘোষণার পরেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং বিভিন্ন সংগঠন নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠা করতে আন্দোলন করে। ভোট ফুরোলে কাউকে আর আন্দোলন করতে দেখা যায় না। শনিবার ধুপগুড়ি মহকুমা আন্দোলনের অবস্থান কর্মসূচির সময় সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী মিছিল থেকে বেরিয়ে মহকুমা নাগরিক মঞ্চের সদস্যদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে। এবং মহকুমার দাবীকে পূর্ণ সমর্থন জানায়। অন্যদিকে মহকুমা নাগরিক মঞ্চে সিপিএম প্রার্থী ঈশ্বর চন্দ্র রায় এবং সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর বাক্যালাপকে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল কংগ্রেসের বক্তব্য, মহকুমা নাগরিক মঞ্চ বামপন্থী মনভাবাপন্ন নেতৃত্ব দিয়ে গড়ে উঠেছে। সেখানে বামপন্থী নেতারা যাবেন এটাই স্বাভাবিক ঘটানা। অন্যদিকে মহকুমা নাগরিক মঞ্চের সম্পাদক অনিরুদ্ধ দাশগুপ্ত বলেন, উনারা ভোটের প্রচারে এসেছিলেন। যাওয়ার পথে আমাদের দেখে এসেছেন। আমরা কাউকে না করতেও পারি না , আমরা কাউকে ডাকতেও পারি না, কাউকে ডাকিও নি। কাউকে বাধাও দিতে পারিনা। ওনারাও নাগরিক। তারা কিন্তু মানুষের জন্যই কাজ করছেন। আমাদের একটাই দাবি বিস্তীর্ণ মানুষের জন্য মহকুমা হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven − eight =